হাইলাকান্দি ( আসাম) প্রতিনিধি : সুজন চক্রবর্তী :

হাইলাকান্দি জেলার দক্ষিণ হাইলাকান্দির উন্নয়ন খন্ডে পঞ্চায়েত ও গ্রাম উন্নয়ন বিভাগের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজে দূনীর্তি হচ্ছে বলে জনসম্মুখে মুখরোচক আলোচনার ঝড় বইছে, দক্ষিণ হাইলাকান্দির উন্নয়ন খন্ডে চতুর্দশ অর্থ কমিশন কাজসহ এমজিএনরেগার মেটেরিয়ালের টাকা ব‍্যাপক হারে সাপ্লায়ারের মারফৎ লুন্টন করছেন ব্লকের কর্মকর্তারা, এ অভিযোগ করেন কারিছড়া মাধবপুর এলাকার বাসিন্দা সমাজ সেবক পার্থপ্রতিম সেন, ২৫ জুন পার্থপ্রতিম সেন দক্ষিণ হাইলাকান্দির উন্নয়নখন্ডের চতুর্দশ অর্থ কমিশনের কাজে ও এমজিএনরেগার মেটেরিয়াল দৃনীর্তির অভিযোগ এনে ব্লকের ভিডিও জেমস আইন্ড এর নিকট এক স্বারকলিপি প্রদান করে, ও স্বারকলিপির অনুলিপি পৃথক প‍ৃথকভাবে হাইলাকান্দি জেলা শাসক মেঘানিধি ডাহাল, হাইলাকান্দির সিইও, পঞ্চায়েত মন্ত্রী ও জেলার পঞ্চায়েত ও গ্রাম উন্নয়ন বিভাগের এক্রিকিডিটিভ ইঞ্জিনিয়ার এর নিকট প্রদান করেন,পার্থপ্রতিম জানান সরকারি গাইড লাইনকে অমান্য করে ব্লক কর্মকর্তারা চতুর্দশ অর্থ কমিশনের কাজের প্রথম কিস্তিতে ২৫ শতাংশ টাকা দেওয়ার নিদের্শ থাকলেও ৬০ শতাংশ টাকা রিলিজ করছেন ব্লকের কর্মকর্তারা, একই ভাবে এমজি এনরেগার মেটেরিয়ালের ও কাজ না করে সাপ্লায়ারের মারফৎ লক্ষ লক্ষ টাকা আত্নসাত করেছেন ভিডিও সহ ব্লকের কর্মকর্তারা, দক্ষিণ হাইলাকান্দির উন্নয়ন ব্লকে ৯ টি গ্রাম পঞ্চায়েতে চতুর্দশ অর্থ কমিশন ও এমজিএনরেগার মেটেরিয়ালের কাজে ব্যাপক হারে লুন্ঠন চলছে, সম্প্রতি ব্লকে একাউন্টেট ইনচার্জ মজাহিদুল ইসলাম লস্কর মেটেরিয়াল এর কয়েক কোটি টাকার আত্নসাতের অভিযোগে চাকুরী থেকে অব‍্যাহিত হয়েছেন, পুনরায় লুন্ঠন রাজ আরম্ভ হয়েছে, পার্থ জানান অবিলম্বে বতর্মান কাজ বন্ধ করে সরজমিনে তদন্ত করে দেখার জন্য ব্লকের বিডিও জেমস আইন্ড এর নিকট স্বারকলিপির মাধ্যমে অনুরোধ জানান, আর তদন্ত না হলে আইনের দারস্হ হতে বাধ্য হবেন বলে সাফ জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.