হাইলাকান্দি ( আসাম, ভারত) প্রতিনিধিঃ সুজন চক্রবর্তীঃ

আসামের ব্রক্ষপুএের জল ধীরে ধীরে কমছে। বেশ কিছু দিন পর দেখা পেয়েছে সামান্য রোদ। তবে এখনও নিম্ন, মধ্য ও উজান আসামের মোট ২২ টি জেলার নিম্নঞ্চলে বন‍্যার তান্ডব লীলা অব‍্যাহত রয়েছে।বৃহস্পতিবার বন‍্যার কবলে পড়ে আরও ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে প্রাকৃতিক দূযোর্গের শিকার হয়ে আসামে নিহতের সংখ‍্যা দাড়িয়েছে ৩৪জনে। উজান শুরু করে মধ্য ও নিম্ন আসামের ২২টি জেলার ৬০টি রাজস্ব সার্কেলের ২,০৫৩টি গ্রামের ১৬,০৩,২৫৫ জন বন‍্যার প্রভাবিত হয়েছেন।

বন‍্যা কবলিত জেলাগুলির মোট ৭২,৭১৭▪৯৮ হেক্টর কৃষি জমি জলে প্লাবিত হয়েছে বলে সরকারি ভাবে জানানো হয়েছে।এ পরিসংখ্যান ২ জুলাইয়ের। আসাম রাজ‍্য দূযোর্গ ব‍্যবস্থাপনা কতৃর্পক্ষ( এএসডিএমএ) সূত্রে জানানো হয়েছে।আসামের ৩৩টি জেলার ২৭টি জেলায় প্রলয়স্করী বন‍্যার কবলে পড়েছিল। আজ বন‍্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়ে এর সংখ্যা কমে এসেছে ২২ এ।

এখন যে সকল জেলা বন‍্যার কবলে রয়েছে সেগুলি যথাক্রমে ধেমাজি, লখিমপুর, বিশ্বনাথ, চিরাং, দরং, নলবাড়ি, বরপেটা, বঙাইগাঁও, কোকরাঝাড়, ধুবড়ি, দক্ষিণ শালমারা, গোয়ালপাড়া,কামরুপ( গ্রামীণ ), মরিগাঁও, হোজাই, নগাঁও, গোলাঘাট, যোরহাট, শিবসাগর,ডিব্রুগড়, তিনসুকিয়া, ও পশ্চিম কাবিআরংলং জেলা।স্থানীয় মানুষ ও প্রশাসনের লোকজন উদ্ধারকার্য ও এান সামগ্রী বন্টনে নিয়োজিত হয়েছেন।আজ বন‍্যা কবলিত এলাকায় ৪,২২১▪৬৭কুইন্টাল চাল, ৭৮৪ কুইন্টাল ডাল, ১২৩▪৯৪ কুইন্টাল লবণ, ও ১,০৪৬▪৪৫ লিটার সরষে তেল বন্টন করা হয়েছে। এছাড়া বেশ কয়েকটি পূর্ত সড়ক ওনদী বাধঁ ভেঙ্গেছে বন‍্যার তোড়ে। দেশের সুরক্ষার স্বার্থে বন‍্যার জলে দাঁড়িয়েই বিএসএফ জওয়ানদের দিনরাত নজরদারি চালিয়ে যেতে হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.