দৈনিক সময়ের বার্তা, ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, আরিফ রববানীঃ

মানুষ কর্মব্যস্ততা শেষে ক্লান্ত শরীর কে শান্ত করতে বিশ্রামের মাধ্যমে যখন আচ্ছন্ন রাখলেও ত্রিশাল পৌর সভার মেয়র ও আওয়ামিলীগ নেতা আলহাজ্ব এবিএম আনিসুজ্জামান আনিছ সেক্ষেত্রে অনেকটাই ভিন্ন। তিনি জনসেবার পাশাপাশি পৌর এলাকার রাস্তার কাজ ঠিকঠাক মতো হচ্ছে কিনা তা দেখতেই ব্যস্ত সময় পার করেন। তিনি নিজের আরাম আয়েশের কথা ভাবেন না,সব সময় ভাবেন তার ত্রিশাল পৌর এলাকা তথা উপজেলার মানুষ কতটা আরামে আছেন সেই কথা।

৮ই জুলাই পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড নওধার এলাকার মোস্তাক হাসান সড়কের কার্পেটিং কাজের শুভ উদ্বোধন করেন একই সাথে মোশতাক হাসান সড়ক হইতে মোহাম্মদ মেম্বার বাড়ি পর্যন্ত আরেকটি রাস্তার নির্মাণ কাজের মান পরিদর্শন করেন ত্রিশাল উপজেলা আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় জননেতা দুই দুইবারের জননন্দিত সফল মেয়র,পৌর এলাকার উন্নয়নের রূপকার আলহাজ্ব এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ । তিনি ওয়ার্ডের রাস্তার কাজের অগ্রগতি ও গুণগতমান দেখতে পায়ে হেঁটে ঘুরে বেড়িয়েছেন।যাতে রাস্তার কাজের মান ঠিকঠাক থাকে। যদিও পৌরপিতার এমন উদ্যোগ নতুন নয়। ত্রিশালের জনগণ যখন ঘরের ভিতর,মানবিক মেয়র তখন জনকল্যানে খাদ্য সহায়তা নিয়ে ঘুরে দেখেন কোন এলাকার জনগণের কি সমস্যা। কোথায়ও রাস্তা সরু আবার কোথায় রাস্তার সংযোগ সড়ক ভাঙ্গা কিংবা যেখানে রাস্তা দরকার ইত্যাদি সমস্যা নিজের চোখে সরেজমিনে দেখতে পায়ে হেঁটেই ছুটেন তিনি। মাঝে মাঝেই গাড়ী দিয়ে যাতায়াত করলেও গাড়ি থামিয়ে শুনছেন কি করলে এলাকায় কার্যকরি উন্নয়ন সম্ভব। কিভাবে মূল ত্রিশাল পৌরসভার যানজট কমানো যায়। পৌরসভার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, রাত-দিন এক করে কাজ করে যাচ্ছেন আমাদের মেয়র। কতটা আন্তরিক হলে এই করোনা কালেও ঝুকি নিয়ে মানুষের সমস্যা নিরসনে বাড়ী-বাড়ী ঘুরে ও রাস্তার উন্নয়ন কাজ দেখতে বের হয় তার উদাহরণ শুধু তিনিই। পৌরবাসীর কল্যাণে নিজেকে সারাক্ষণ ব্যস্ত রাখতে ত্রিশাল পৌরসভার রাস্তাঘাট, মসজিদ, মাদ্রাসা, কবরস্থান, খেলাধুলার মাঠ, বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের অগ্রগতি দেখতে সরেজমিন পরিদর্শন করে যাচ্ছেন। এর আগেও রাতে পরিকল্পিত নগর গড়তে নগরের ৩,৪,৫ নং ওয়ার্ডে জনগণের সমস্যা নিজের চোখে দেখতে ঘুরে বেরিয়েছেন। ৫নং ওয়ার্ডে রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণসহ বিভিন্ন ধরণের উন্নয়ন কাজ উদ্ভোধন ও সরেজমিনে পরিদর্শন করছেন।

এভাবে প্রতিদিন মাঠে-ঘাটে জনগণের কাছে যাচ্ছেন জনগণের মেয়র। এ বিষয়ে ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব এবিএম আনিসুজ্জামান বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রার্দূভাবের প্রভাব বাংলাদেশসহ সারা পৃথিবীতে। এর প্রভাব আরো কতদিন থাকে আল্লাহ তায়ালাই ভালো জানে। এর মধ্যেই পৌর এলাকার উন্নয়নেরও কাজ চালিয়ে যেতে হবে। কারণ সময় থেমে থাকে না। আর প্রাইভেট গাড়িতে বসে এলাকার প্রকৃত চিত্র দেখা যায় না। তাই পৌর কার্যালয়ে সারাদিনের কাজ শেষে দুপুর থেকে এলাকাগুলো ঘুরো দেখছি রাস্তার কাজ কেমন হয়েছে, কোথায় সম্প্রসারণসহ আরো কি কি করা দরকার। যতদিন বেঁচে থাকি জনগণের পাশে থাকবো, জনকল্যাণে কাজ করে যাবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.