আরিফ রববানী,(ময়মনসিংহ):

মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবের কারণে ঘর থেকে বের হওয়া মহা বিপদ,যে কারণে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ খেটে খাওয়া মানুষ। বাংলাদেশর সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার সেইসব ক্ষতিগ্রস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদেরকে বিভিন্ন ভাবে বরাদ্ধ দিয়ে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বরাদ্ধ সারা বাংলাদেশের ন্যায় ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার কানিহারী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় খাদ্যশস্যসহ বিভিন্ন বরাদ্ধ গরীব হত-দরিদ্র অসহায়দের মাঝে বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সাধারন সম্পাদক আশরাফ আলী উজ্জ্বল। সেই ধারাবাহিকতায় এবার ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষীরা করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে এ কমহীন হয়ে পড়ায় খাদ্য সংকটে পড়ায় ৩৪ জন সাক্ষীকে প্রধান মন্ত্রীর উপহার খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ আলী উজ্জল। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে যুদ্ধ বিরোধী ও রাজাকারদের নামে দায়ের করা মামলার সাক্ষীরা মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে নির্যাতিত,সত্যবাদী, পরিক্ষিত মুজিব আদর্শের সৈনিক, দেশপ্রেমিক বিধায় তাদের পাশে দাড়ান এবং খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন চেয়ারম্যান উজ্জ্বল। করোনার এই দুঃসময়ে তাদের পাশে দাড়াতে পেরে চেয়ারম্যান উজ্জল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। একই সাথে করোনার এই চলমান দুঃসময়ে খাদ্য সামগ্রী হাতে পেয়ে চেয়ারম্যান কেও ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানান মানবতা বিরোধী অপরাধ মামলার অবহেলিত এসব সাক্ষীরা। শুধু কানিহারী ইউনিয়ন নয় যে কোন অসহায় মানুষ চেয়ারম্যানের কাছে আসলে তিনি তার স্বাধ্যমত সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। সকলের সহযোগিতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশনায় সরকারের বিভিন্ন প্রকার বরাদ্ধ স্বচ্ছ ভাবে বিতরণ করায় সাধারণ মানুষ ব্যাপক চেয়ারম্যান উজ্জ্বলের প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। চেয়ারম্যান উজ্জল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রত্যাশা করেন । তিনি বলেন-আমাদের মানবিক প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা সুস্থ্য থাকলে দেশের মানুষ ও কানিহারী ইউনিয়নসহ দেশের সকল মানুষ ভাল থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.