দৈনিক সময়ে বার্তা জেলা প্রতিনিধি: সানজিদা ইসলাম

অসহায় বৃদ্ধ জহিরুল হক (৮১)। তিনি গাজীপুর মহানগরের গাছা থানাধীন ৩৬ নং ওয়ার্ডের কামারজুড়ী এলাকায় বসবাস করেন। রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে চাকুরি করা জহিরুল হক সারাজীবনের সঞ্চয় দিয়ে পাঁচ কাঠা জায়গা কিনে বাড়ী করেন। স্ত্রী গত হয়েছেন। বয়সের ভাড়ে ন্যূজ জহিরুল হকের শেষ জীবনটা আরাম আয়েশে কাটানোর কথা ছিল। কিন্তু ভাগ্যের কি নিষ্ঠুর পরিহাস! জমিসহ বাড়ী লিখে দেয়ার জন্য নিজ পুত্রদের নির্যাতনের শিকার হলেন তিনি। দুই ছেলে একরামুল হক সেলিম ও ইঞ্জিনিয়ার আনোয়ার হোসেনের অত্যাচারে টিকতে না পেরে বাঁচার আকুতি নিয়ে পালিয়ে যান মেয়ে মর্জিনার ভাড়া বাসায়। সেখানেও নিস্তার মেলেনি তাঁর। জমিলিপ্সু দুই পুত্র তাদের জন্মদাতাকে সেখান থেকে সিঁড়ি দিয়ে টেনে হিচড়ে বের করে নিয়ে আসেন। অশীতিপর জহিরুল হকের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে রক্ষা করে বিষয়টি পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন বিপিএম(বার), পিপিএম(বার) মহোদয়কে অবগত করেন। অতঃপর পুলিশ কমিশনারের নির্দেশে গাছা থানা পুলিশ অসহায় জহিরুল হককে উদ্ধার করে তার নিজ বাড়ীতে নিয়ে যায়। নিজের বাড়ীতে পুনরায় আসতে পেরে আপ্লুত জহিরুল হক পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নির্যাতনকারী পুত্রদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.