দৈনিক সময়ের বার্তা, মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহঃ-

ঝিনাইদহে নিষিদ্ধ ঘোষিত ভ্রাম্যমান নারী দেহ ব্যবসার মুল হোতা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রুহুল আমিনের স্ত্রী বেবীকে আটক করেছে থানা পুলিশ।পূর্বে একই অপরাধে আটককৃতদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্ধি অনুযায়ী তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গেছে।মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) সকাল ১০ টার দিকে শহরের হামদহ পার হাউজ পাড়ার বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়।

পুলিশ সুত্রে আরও জানা গেছে, বেবী দীর্ঘদিন যাবত অসহায় সুন্দরী নারীদের বিভিন্ন প্রকার টাকার লোভ দেখিয়ে তাদের দিয়ে দেহ ব্যবসা করে আসছিল।সে এসমস্ত মেয়েদের দিয়ে ঝিনাইদহ সহ অন্যান্য জেলার অনেক বড়বড় ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন স্তরের মানুষের সাথে প্রেমের ফাঁদ পেতে, তাদেরকে সুকৌশলে বাসায় ডেকে এনে ঐ সমস্ত সুন্দরী নারীদের সাথে নগ্ন ছবি তুলে তাদেরকে ফাঁসিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল।ঝিনাইদহ শহরে এই বেবি অন্ধকার জগতের মহা সম্রাজ্ঞী নারী হিসাবে পরিচিত। যাকে এক ডাকে সবাই তাকে চেনে।শহরের বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় অনেক দেহ ব্যবসায়ী নারী তার সাথে জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নারী হিসাবে বেবি এতটাই ভয়াবহ যে পুলিশের হাতে আটক হওয়ার পরও সে একবিন্দু ভীত হননি।

পুলিশের হাতে আটক হওয়ার সংবাদ পেয়ে সাংবাদিকরা তথ্য নিতে গেলে, সে সাংবাদিকদেরও হুমকি দিয়ে বলে, যে আমার সংবাদ প্রেস করবে জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তাকে দেখে নেওয়া হবে। ঝিনাইদহে দেহ ব্যাবসার এই মম্রাজ্ঞী নারীর কবলে প্রত্যন্ত অঞ্চলের ধর্নাড্য ব্যাক্তিদের মধ্যে যারা বিপদগ্রস্ত হয়েছেন, নাম না জানাতে ইচ্ছুক এমন তিন জনের খোঁজ নিয়ে জানা গেছ্‌ তাদের মধ্যে একজনের কাছ থেকে ২ লক্ষ টাকা, আরেক জনের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা, এবং অন্য আরেক জনের কাছ থেকে ৪০ হাজার টাকা, তার পালিত ঐ সমস্ত সুন্দরী নারীদের ফাঁদে ফেলে গ্রাস করেছে।ভুক্ত ভোগীরা তাদের মান সম্মান বাঁচাতে নিরবে এই বেবির ফাঁদে পা ফেলে আত্মসমর্পণ করেছে।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মিজানুর রহমান জানান, বেবী দীর্ঘ দিন যাবত ঝিনাইদহ শহরে নিজে ও অন্য নারীদের দিয়ে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছে। শুধু তাই নয় বিভিন্ন মানুষের সাথে নারীদের নগ্ন ছবি তুলে ব্লাকমেল করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার সাথে আরো যারা এ সমস্ত অপরাধের সাথে জড়িত আছে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে বলে ওসি জানান। সেই সাথে ওসি আরও জানান, ঝিনাইদহে মাদক নির্মূল অভিযানের পাশাপাশি এ ধরনের অপরাধের সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধেও অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.