দৈনিক সময়ের বার্তা, মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা প্রতিনিধি,ঝিনাইদহঃ-

ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার শিংঙ্গা গ্রামে বাল্যবিবাহ বন্ধে ইউএনও এর উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে গেল বিয়ে বাড়ীর লোকজন । সোমবার দুপুরে ইউএনও সৈয়দা নাফিস সুলতানা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পায় যে ঐ গ্রামের ক্যানাল পাড়ায় আশিরদ্দীনের ছেলে মহাসিনের দশম শ্রণীতে পড়ুয়া মেয়ের বিবাহ দিচ্ছে তার পরিবারের লোকজন । খবর পেয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বিচারের প্রয়াসে শিংঙ্গা গ্রামে যান, নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও ইউএনও সৈয়দা নাফিস সুলতানার গ্রামে উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ে বাড়ীর লোকজন সব পালিয়ে যায়। এসময় তিনি একই স্থানে মশিয়ায়ের দোকানে খাটলায় করোনা কালীন সময়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে ভিড় জমানোয় ঐ দোকানের খাটলা অপসারন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.