দৈনিক সময়ের বার্তা, মোস্তাফিজুর রহমান, জেলা প্রতিনিধি,ঝিনাইদহঃ-

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ২ নারী ও এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে তমালতলা পুলিশ ক্যাম্পের আইসি এসআই উত্তম কুমার তাদের আটক করে থানায় সোপর্দ করে। জানা যায়, উপজেলার ত্রিবেনী ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামে তিন তলা একটি বাড়ীর নিচতলায় দীর্ঘদিন ধরে ফিজিওথেরাপী সেন্টারের নাম করে অসামাজিক কার্যকলাপ চলছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় অসামাজিক কার্যকলাপের আলামত ও দুই নারীসহ প্রতিষ্ঠানের মালিককে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো কথিত ফিজিওথেরাপী মালিক কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার মিরপুর গ্রামের হাসমত আলী শেখের ছেলে খায়রুল ইসলাম (৩৮), একই জেলার ইবি থানা এলাকার ঝাউদিয়া গ্রামের আমিরুল ইসলামের স্ত্রী নুরুন্নাহার (২৬) ও হরিনারায়পুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের স্ত্রী শেফালী বেগম (৫২)। তমালতলা ক্যাম্প আইসি এসআই উত্তম কুমার জানান, বসন্তপুর গ্রামের তিনতলা ঐ বাড়ী ফিজিওথেরাপী সেন্টারের নাম করে ভাড়া নিয়ে খায়রুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে বাইরে থেকে মহিলা এনে অসামাজিক কার্যকলাপ চালায় বলে অভিযোগ পেয়ে তারা এ অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় অসামাজিক কার্যকলাপের আলামতসহ ৩ জনকে আটক করেন। আটককৃতদেরকে প্রসিকিউশন দিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য সম্প্রতি এই বাড়ীর নিচ তলায় কথিত ফিজিওথেরাপী সেন্টারে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব-৬ বিপুল পরিমান ইয়াবা ট্যাবলেটসহ একজনকে আটক করে। সেসময় প্রতিষ্ঠানের মালিক খায়রুল ইসলাম পলাতক ছিলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.