সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে ৬৫ বছর বয়স্কা বৃদ্ধা সহ ৪ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন উপজেলার বালুচর  ইউনিয়নের কয়রা খোলা গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী সখিনা বেগম(৬৫), লোকমানের স্ত্রী সালমা বেগম(৩৬), মন্তাজ উদ্দিনের ছেলে জাহিদুল(৪০), আওলাদ হোসেনের ছেলে আব্দুল মোহাইমেন(৩৫)। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে  উপজেলার কয়রা খোলা গ্রামে। এতে গুরুত্বর আহত জাহিদুল ও আব্দুল মোহাইমেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এই ঘটনায় ২জন আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার কৃতরা হলেন ওয়াজ বুরুনী ছেলে মো. সাইদুল(৩৭) ও মো. বিল্লাল(৪০)।

প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে উপজেলার কয়রা খোলায় গিয়াস উদ্দিনের বাড়ির সামনে রাস্তার উপর জাহিদুল ও মোহাইমেনকে পথরোধ করে। একি গ্রামের ওয়াজ বুরুনীর ছেলে শফিকুল(৩০), সাইদুল (৩৭), বিল্লাল (৪০), সিরাজ উদ্দিনের ছেলে স্বপন(৩৭), এবং রামকৃষ্ণদি গ্রামের ইবনে সউদের ছেলে জুয়েল(৩০), আতাউল্লাহর  ছেলে আকরাম (২৫) আরো ২/৩ জন। এসময় তারা  তাদের ধারাল অস্ত্র দিয়ে জহিদুলের মাথায় ও হাতে কোপ মারে এতে তার মাথা ফেটে যায় ও হাতের দুইপি আঙ্গুক কেটে যায়। আব্দুল মোহাইমেনর মাথায় তারা কোপ দিলে তার মাথা ফেটে যায়। তার গিয়াস উদ্দিনের বাড়িতে ঢুকে লোকমানের বাড়িঘর ভাংচুর করে। ভাংচুরে বাধা দিয়ে আসলে লোকমানে স্ত্রী সালমা বেগম (৩৮) কে তারা রক্তাক্ত জখম করে। গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী সখিনা বেগম(৬৫) বাধা দিতে আসলে তাকেও মারধর করা হয়।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন বলেন, এই ঘটনায় আমরা দুইজন আসমি গ্রেফাতর করেছি। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।#

Leave a Reply

Your email address will not be published.