নিজস্ব প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জঃ

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার হেলাচিয়া গ্রামের মানুষ স্থানীয় বখাটে মাদক সেবী ও ব্যবসায়িদের উৎপাতে অতিষ্ট হয়ে পড়েছেন।

স্থানীয় জনগণ জানান,, এর আগে হেলাচিয়া গ্রামে এতটা মাদকের ভয়াবহতা ছিলনা। হঠাৎ করে বেশকিছুদিন যাবৎ মাদক সেবী ও ব্যবসায়িরা লাগামছাড়া হয়ে পড়েছে। এলাকার চিহ্নিত কয়েকটি স্পটে সন্ধা নামলেই শুরু হয় মাদক সেবীদের রমরমা ব্যবসা ও মাদক সেবন।

এলাকায় বহিরাগত কয়েকজন প্রভাবশালী বখাটের মাধ্যমে মাদক ঢুকছে বলে নিশ্চিৎ করেন তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানান ভাই যারা মাদক বেচে আর খায় তাদের সবাইরেই চিনি এরা আমাগো এলাকাডারে একদম শেষ কইরা দিল। কারে থুইয়া কারে কি কমু !! কাউরে কিছু কইতে গেলে পড়ে দেহা যাইব আমাগো উপরে নিযাতন শুরু করব।

স্থানিয়দের সাথে কথা বলে বেশ কয়েকটি মাদক স্পট সর্ম্পকে তথ্যমেলে এদের মধ্যে অন্যতম কয়েকটি মাদক স্পট ঘিওর উপজেলা হেলাচিয়া গ্রামের(১) আলীর” স” মিল ( ২)হায়াত আলীর পরিত্যক্ত ভিটা (৩) তেরদোনা বিশ্বাস বাড়ীর ভিটা।

মদকের স্পট গুলোর পাশাপাশি কয়েকজন মাদক সর্বরাহ কারী ও মাদক সেবীর তালিকা স্থানীয় ভাবে সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরা হয় যাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী নালী ইউপি সদস্য রতন মিয়া (৪০) যার বিরুদ্ধে কয়েকটি মাদক মামলা বিদ্যমান, বাঠাইমুড়ী গ্রামের সাইদুর রহমান (৩০) পিতঃ রায়হান, হেলাচিয়া গ্রামের স্বপন রাজবংশী (৩৫) পিতাঃ পনচনন্দ রাজবংশী, সোহেল (২২) পিতা: মোঃ আলাল মিয়া, সবুজ (২৩) পিতা: মোনোয়ার হোসেন মনু, সুজন রাজবংশী (২৫) পিতা: সমন্ত রাজবংশী।

স্থানিয়রা মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে নতুন প্রজন্মকে রক্ষা করতে স্থানীয় প্রশাসন ও সমাজের গন্যমান্য সচেতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এই মাদক কে নির্মূলের আহবান ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.