জালিস মাহমুদ,পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, বর্তমান সরকার কুরআন ও সুন্নাহর বাহিরে কিছুই করবে না। শেখ হাসিনার সরকার মদের লাইসেন্স দেয়না।কুরআন ও সুন্নাহভিত্তিক কিভাবে আলোকিত মানুষ তৈরী করা যায় তার চেষ্টা করছেন। মাদরাসা শিক্ষাকে আধুনিকায়ন ও বিশ্বমানের শিক্ষা নিশ্চিত করতে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় ও কওমী মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্সের সমমর্যাদা দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী ২৩শে আগস্ট (সোমবার) পিরোজপুর জেলা প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত জাতীয় ইমাম সমিতির উদ্যোগে পিরোজপর সদর উপজেলার শহীদ ওমর ফারুক অডিটোরিয়ামে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ২১ শে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় আয়োজিত আলোচনা সভা,মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, সরকার ৫০০ মাদ্রাসার উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। প্রতিটি উপজেলায় একটি মডেল মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। সেখানে ইসলামি সাহিত্য ও সংস্কৃতির চর্চা হবে।

পিরোজপুর জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা মো. ফারুক আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে ও হাফেজ মাওলানা মো. রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুর জেলা আ’লীগের সহ- সভাপতি এডভোকেট আব্দুর রাজ্জাক খান বাদশা,বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেসিন পিরোজপুর জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা ড. সাইয়্যেদ মোহম্মদ শরাফাত আলী, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি ও দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুহা.চাঁনমিয়া মাঝী,পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জান ফুলু।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পিরোজপুর জেলা জমিয়াতুল মোদাররেসিন এর সেক্রেটারী জনাব মো.ফারুক আহম্মদ, জেলা ইমাম সমিতির সাবেক সভাপতি আলহাজ্জ মাওলানা আব্দুল মালেক হাওলাদার,জেলা ইমাম সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আ’লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মো. নাসির উদ্দীন মাতুব্বর,যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কামরুজ্জামান খান শামীম, জেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসান ও জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক অনিরুজ্জামান অনিকসহ স্থানীয় আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে পিরোজপুর জেলার প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত কয়েকশত ইমাম ও মসজিদ ভিত্তিক গণশিক্ষা কার্যক্রমের শিক্ষকগনসহ বিভিন্নস্তরের জনগন উপস্হিত ছিলেন।

পরিশেষে বঙ্গবন্ধুর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত ও খাবার বিতরনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.