নড়াইল প্রতিনিধিঃ

নড়াইল সদর উপজেলার কড়োলা ইউনিয়নের কড়োলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারীর শিক্ষক অনুপমের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সীমাহীন লুচ্চা এই মাষ্টার এলাকার অল্প বয়সী মেয়েদের পথে পেলে ইভটিজিং সহ নানা রকম কু প্রস্তাব দিয়ে থাকে। তার নিজের যৌন লালসা পুরন করতে নিজের আপন লোকদের ও ছাড়ে না। কথিত রয়েছে কলোড়া স্কুলে চাকরির সুবাধে তিনি শিক্ষার্থীদের সাথে যৌন সম্পর্কে জড়ানোর চেষ্টা করে থাকেন। ছাত্রীদের গোপন অঙ্গে হাত দিয়ে থাকেন।

সম্প্রতি সময়ে তার নিজ এলকার এক মেয়েকে কু প্রস্তাব দিলে ওই মেয়ে তাকে পথি মধ্যে লোকসমাগমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ঝাটা পেটা করেন।

ইতি মধ্যে ওই শিক্ষকের নারী কর্তৃক ঝাঁটা পেটার ভিডিও সাংবাদিক দের হাতে এসে পৌঁছেছ। পথিমধ্যে এক জন শিক্ষককে ঝাঁটা পেটার ঘটনা এলাকায় ব্যপক ভাবে সমালোচিত হয়েছে। বীড় গ্রামে এই নিয়ে জনসমাগমে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবাসী এই লুজ্জা মাষ্টারকে অনতিবিলম্বে আটক করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন। সচেতন মহল মনে করছে এক জন শিক্ষক হয়ে যদি তার চরিত্র এত বদ হয় তাহলে তিনি ছেলে মেয়েদের কি শিক্ষা দেবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বীরগ্রামের বাসিন্দা এক ভদ্রলোক বলেন, অনুপম মাষ্টারের ধন কেটে ফেলা হক।

এ বিষয়ে জানতে অনুপম মাষ্টার সাংবাদিকদের বলেন, আমাকে যে মেয়ে ঝাঁটা পেটা করেছে সেই মেয়ের সাথে আমার আপস- মিমাংসা করে ফেলেছি। এ নিয়ে আর কিছু হবে না।

অনুপম মাষ্টারের নানাবিধ যৌন লালসার সু নিদিষ্ট তথ্য প্রমান সহ – ধারাবাহিক সংবাদ পেতে আমাদের সাথে থাকুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.