মির্জা মাহামুদ হোসেন রন্টু নড়াইল:

নড়াইল শহরতলীর সীমাখালী ঘাট এলাকায় লিয়াকত সিকদার(৫০) নামে এক শ্রমিক নেতাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় এখন পর্যন্তু পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি । রোববার নড়াইল সদর হাসপাতালে লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। নিহত লিয়াকত সিকদার সীমাখালী গ্রামের সোহরাব শিকদারের ছেলে।

জানাগেছে, গতকাল শনিবার রাত ৮টার দিকে সীমাখালী বাইপাস ঢাকা -কালনা সড়কের পাশে নবুয়াত শেখের বাগান থেকে লিয়াকতের দু পা কাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে।

স্থানীয়রা জানায়, লিয়াকত সিকদারের সাথে স্থানীয় আধিপত্য নিয়ে আউড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পলাশ মোল্যার সাথে দীর্ঘদিন ধরে দন্দ্ব চলে আসছিলো। সম্প্রতিক সময়ে কয়েকবার ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জের ধরে হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে পারে বলে এলাকাবাসী জানায়।

মৃত লিয়াকত শিকদারের ছোট ছেলে প্যাভেল জানান, আউড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পলাশ ও তার ভাই শিমুলসহ দলের লোকেরা আমার বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে আমরা দ্রুতই লিখিত অভিযোগ নিয়ে থানায় যাব।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্ত(ওসি) শওকত কবির হোসেন বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। দোষীদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যহত রয়েছে। এখনো মামলা হয়নি।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার(আরএমও) ডাঃ মশিউর রহমান বাবু বলেন, লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। নিহতের শরীরের বিভিন্নস্থানে উপর্যপরি ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.