মির্জা মাহামুদ হোসেন রন্টু ,নড়াইল:

নড়াইল সদর উপজেলার মুলিয়া ইউনিয়নে এক নিরীহ ব্যক্তির জায়গা দখল করে আওয়ামী লীগের অফিস ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগে জানাযায়,মুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিপুল সিকদার ও মৎস্য চাষি দিপক রায় স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে বড়েন্দার গ্রামের মোহনলাল নামে এক নিরীহ হিন্দুর জায়গা দখল করে আওয়ামী লীগের ইউনিয়ন অফিস নির্মান করেছেন। মুলত আওয়ামী লীগের সাইনবোর্ড দিয়ে ওই ঘরে পাট ও মাছের ব্যাবসা চালাচ্ছে দীপক রায়। দীপক রায় নিজেকে অনেক ক্ষমতা ধর দাবি করে নীরিহ ব্যক্তিদের ভয় ভীতি দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে মুলিয়া বাজারে ত্রাসের রাজত্ব চালিয়ে যাচ্ছে।

আর এই সব অপকর্মের সহযোগিতা করছে মুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিপুল সিকদার। তিনি দলের সভাপতি হওয়ার সুবাধে দলীয় ক্ষমতা বলে অন্যের জমি দখল করে আওয়ামীলীগের অফিস ঘর নির্মান করছেন।

স্থানীয়রা জানান, নাম মাত্র অফিস করে এখানে পাট ও মাছের ব্যবসা করা হয়।
ভুক্তভোগী মোহনলাল জানান, এটা আমাদের জায়গা। মামলায় কোর্ট আমাদের রায় দিয়েছে। কিন্তু বিপুল সিকদার জোর করে আওয়ামী লীগের অফিস করে জায়গা দখল করে রেখেছে। আমি আমার জায়গা দখল বুঝে পাওয়ার জন্য প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করি।


এ বিষয়ে মুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বিপুল সিকদার বলেন, এটা কারো ব্যক্তি মালিকানা জায়গা না। এটা ইউনিয়ন পরিষদের জায়গা। আমি চেয়ারম্যান থাকা কালে এই জায়গা নিয়মতান্ত্রিক ভাবে দীপকের নামে বন্দবস্ত করে দিয়েছি।


এ বিষয়ে দীপক কুমার রায় বলেন এটা আমি পরিষদ কর্তৃক বন্দবস্ত করে নিয়েছি। এই জায়গা এখন আমার।


এ বিষয়ে মুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ অধিকারী জানান, জায়গা ইউনিয়ন পরিষদের নয়। তিনি এটা কিভাবে দিলো। ব্যক্তি মালিকানা জায়গা ক্ষমতা বলে দখল করা হয়েছে। এ নিয়ে কোর্ট রায় দিয়েছে। কিন্তু রায় অমান্য করে আওয়ামী লীগের অফিস ঘর করে জায়গা দখল করে রাখা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.