মোঃ লিয়াকত কাজীফরিদপুর প্রতিনিধিঃ

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাতাহাতির ঘটনায় মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। 
এই বিষয়ে জানা যায়, ভাঙ্গা উপজেলার কালামৃধা ইউনিয়নে দেওয়রা গ্রাম পাটের জাগ দেওয়ার কাঠ নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। 

অতঃপর স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গ এই বিষয়ে সুরাহা করেন। কিন্তু একটি পক্ষ অন্য পক্ষকে হয়রানির করার উদ্দেশ্যে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার স্মারক নং ২৬৪৬(৩)/১।  মামলাটি বর্তমানে বিজ্ঞ জেলা জজ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।  

এই বিষয়ে  ভুক্তভোগী সরজু ব্যাপারী সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত চার আগস্ট দুপুর বেলা  পাটের উপর দেওয়ার জন্য কিছু কাট (কাঠ) দিয়ে মাটি দেই। হেরপর (এরপর) পাট হয়ে গেলে (আঁশ ছাড়নোর) জন্য পানি থাইকা (থেকে) উপরে তুলি। সেই কাঠ ওনারা দাবি করে আমাদের এই গুলো নিয়ে আমার পোলার লগে মারামারি হয়। ঘটনা নিয়ে তৈয়ব আলীর ব্যাপারী কাছে,  (আমাদের অন্যায় না থাকার পরেও) মাফ (ক্ষমা) চাইছি। তবুও আমাদের নামে হেরা মোকদ্দমা (মামলা) দায়ের করেন।  এছাড়া হেরা (তাহারা) আমাদের বিভিন্ন প্রকার হুমকি ধুমকি দিচ্ছে। আমাদের তো এখন দিন কাটানোর (জীবন যাপন করায়) কষ্ট বাহে। 

দায়ের কৃত মামলায় প্রধান আসামী মন্নু ব্যাপারীর স্ত্রী শারমিন আক্তার বলেন, আমাগো হগলডিরে (আমাদের সবাইকে) তৈয়ব আলীরা কুরবানি দিবে। এহন(এখন) তো আমাদের থাহায় (বসবাস) কষ্ট। আপনারা আমাগের বাচান

এই বিষয়ে সাবেক মেম্বার (সালিসের প্রধান) আব্দুল রাজ্জাক মাতুব্বর বলেন, আমি ঘটনার তৃতীয় দিন এলাকার মান্যগণ্য ব্যাক্তিদের নিয়ে এই বিষয়ে মীমাংসা করি । ভবিষ্যতে যেন এরূপ কিছু না ঘটে তার জন্য জরিমানা আদায় করা হয়। কিন্তু তারপর কি হয়েছে আমি জানি না ।

আপনার মতামত লিখুন