সুমন ইসলাম বাবু,লালমনিরহাট 
দহগ্রামের তিনবিঘায় দেয়াল নির্মাণ প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন ও সমাবেশ, উপ- হাইকমিশনারের পরিদর্শনলালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম তিনিঘা করিডোর সড়কের দু’দিকে দেয়াল নির্মাণের প্রতিবাদে ঢাকায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে। অপরদিকে নির্মাণ কাজ হলে কোনো সমস্যা হবে কি না- তা বুঝতে ও জানতে তিনিবিঘা পরিদর্শন করেছেন ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশি উপ- হাইকমিশনার তৌফিক হাসান।
স্থানিয়রা জানায়, দহগ্রাম ইউনিয়নে প্রবেশে ভারতের তিনবিঘা করিডোর সড়ক ব্যবহার করে বাংলাদেশিদের চলাচল করতে হয়। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) নিয়ন্ত্রাণাধীন এ সড়কটির দুই দিকে গত ০৫ সেপ্টেম্বর দেয়াল নির্মাণ করতে থাকে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। জনসাধারণের চলাচলের এ রাস্তাটি সংকুচিত হওয়ার শঙ্কায় ও পার্শ্ববর্তী বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)- কে না জানানোয় এ কাজ বন্ধ করে দেয় বিজিবি এবং স্থানীয় বাসিন্দারা।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ১০ সেপ্টেম্বর বিকেলে (০৪ টার পর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের (ঢাকা) সামনে দহগ্রাম- আঙ্গোরপোতা ঢাকাস্থ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। অপরদিকে বিষয়টি জানতে পেরে দেয়াল নির্মাণের ঘটনা স্বচক্ষে দেখতে তিনবিঘা করিডোর সড়ক পরিদর্শণ করেছেন ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশি উপ- হাইকমিশনার তৌফিক হাসান। গত বৃহস্পতিবার (০৯ সেপ্টেম্বর) বিকেল প্রায় সাড়ে ৫ টায় পরিদর্শন করেন তিনি। এদিন তাকে বিএসএফের পক্ষ থেকে জানানো হয়- ১৭৮ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৮৫ মিটার প্রস্থ্যের সড়কের দুইদিকে ৬ ইঞ্চি করে দেয়াল তৈরি করে টাইলস্ লাগিয়ে সৌন্দর্য্য বর্ধন করা হবে। এর আগে তিন ফুট দেয়াল নির্মাণের কথা জানতে পারে বিজিবি। বিজিবি ও স্থানীয়দের বাধায় ৮ সেপ্টেম্বর থেকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে।ভারতীয় প্রশাসনের সংস্কারের নামে দহগ্রাম বাসিদের চলাচলের রাস্তা কমে যাবে এর প্রতিবাদে ঢাকায় আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন- আইইউবিএটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও উত্তরা পশ্চিম থানা ছাত্রলীগের সহ- সভাপতি কামরুল হাসান। বক্তব্য দেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র লিজু হাসান, ইতিহাস বিভাগের ছাত্র সাইদুল ইসলাম, ঢাকা কলেজের ছাত্র সুইট হাসান, লাবু আহমেদ, ঢাকা তিতুমীর কলেজের ছাত্র সাফিউল ইসলাম। ছাত্ররা তাদের বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, ‘আপনি আমাদেরকে রক্ষা করুন।‘ ছাত্ররা এ সময়, ভারতীয় কর্তৃপক্ষ ২৪ ঘন্টার মধ্যে নির্মাণ কাজ বন্ধ না করলে বা নির্মাণ সামগ্রী না সরালে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও করার ঘোষণা দেন।

অপরদিকে, বৃহস্পতিবার উপ- হাইকমিশনার ভারতের কলকাতা থেকে সড়ক পথে তিনবিঘা করিডোরে আসেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উপ- হাইকমিশনার তৌফিক হাসান তিনবিঘা করিডোর সড়কে দেয়াল নির্মাণ হলে বাংলাদেশিদের চলাচলে কোনো সমস্যা হবে কিনা তা বুঝতে ও জানতে এসেছেন। এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভারতীয় কর্তৃপক্ষ ৬ ইঞ্চি টাইলস্ দিয়ে সৌর্ন্দয বর্ধনের কাজ করছিল। এতে কোনো সমস্যা হবে না। উর্দ্ধতন র্কতৃপক্ষকে জানানো হবে। এ সময় হাইকমিশনার রংপুর ৫১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (সিও) লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ঈসহাকের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলেন। পরিদর্শণের সময় – ভারতীয় তিনবিঘা ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার বিকাশ শিং, মেখলিগঞ্জ মহকুমার শাসক রাম কুমার তামাং, কুচলিবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত র্কমর্কতা (ওসি) কাজল দাস এবং বিজিবির পানবাড়ি কোম্পানি কমান্ডার

আপনার মতামত লিখুন