মানিকগঞ্জ

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় ৫ নং ফেরিঘাটে রো রো আমানত শাহ নামের ফেরি ডুবে যাওয়ায় ফেরিতে থাকা পন্যবাহী ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান সহ ১৯টি যানবাহন পদ্মায় তলিয়ে গেছে। এ ঘটনায় নদীতে তলিয়ে যাওয়া যাত্রী এবং যানবাহন উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দল।

ফেরিতে থাকা প্রত্যক্ষদর্র্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, যানবাহনের চালক, হেলপার ও দুটি প্রাইভেটকারসহ প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ জন যাত্রী ছিল ফেরিতে। ফেরিটি ডুবে যাওয়ার সময় ২০-২৫ জন মানুষ তৎক্ষণাত সাঁতরে নিরাপদে কুলে উঠে আসতে সক্ষম হন।

ইতিমধ্যেই উদ্ধার কাজ চালানোর জন্য উদ্ধারকারী ‘হামজা’ কাজ শুরু করেছে। উদ্ধার কাজের জন্য আরো একটি ফেরি নারায়ণগঞ্জ থেকে আসছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ। কুষ্টিয়া থেকে আসা ফেরিতে মোটরসাইকেল যাত্রী মোহাম্মদ সুজন জানান, দৌলতদিয়া থেকে ছেড়ে আসার পর মাঝ নদীতে হঠাৎ ফেরিতে পানি ঢুকতে শুরু করে, এসময় ফেরি কিছুটা কাত হয়ে যায়। এরপর ফেরিটি ৫ নং ঘাটে আসামাত্রই তলিয়ে যেতে থাকে। ফেরিতে থাকা গাড়িগুলো একটি অন্যটির সাথে ধাক্কা খেতে শুরু করে। এসময় ভয়ে আমি মোটরসাইকেল রেখে ফেরি থেকে নদীতে ঝাপ দেই। অনেকেই ফেরি থেকে ঝাপ দেওয়ার সময় পায়নি। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ফেরিটি তলিয়ে যায়। গরাগরি খেয়ে অনেকেই গাড়ীর নিচে চাপা পরে ততক্ষণে ফেরিটি ডুবে যায়।

ঘটনার পরপরই জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মোঃ শরিফুল ইসলাম ঘাট এলাকা পর্যবেক্ষণ করছেন। এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সানোয়ারুল হককে আহ্বায়ক করে ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.