আব্দুল আল রাকিব, মানিকগঞ্জ সদর প্রতিনিধিঃ

 তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউ.পি) নির্বাচনে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায় সাতটি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হওয়ায় ১১ জনকে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মহীউদ্দীন এবং সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালামের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়। বহিষ্কৃতরা হলেন- মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার দিঘী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউ.পি) বিদ্রোহী প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান আখতার উদ্দিন আহমেদ রাজা্। একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য নুসরাত ইসলাম নুপুর, বেতিলা-মিতরা ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সাবেক চেয়ারম্যান মো. আসমত আলী, একই ইউনিয়নের অপর বিদ্রোহী প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক আহমেদ ফিলিপ। কৃষ্ণপুর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী ও সদর উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক আহ্বায়ক ও সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হামিদ (চান্দু দারোগা)। পুটাইল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আবদুল জলিল। এছাড়া একই ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী ও জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক লীগের সভাপতি সোহেব আহম্মেদ রাজা। ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল কাদের এবং একই ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক জাফর ইমাম শাহাজাদা, হাটিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মো. মিজানুর রহমান এবং আটিগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্যা নার্গিস আক্তার বাচ্চা।

 আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম বলেন, দলীয় পদে থেকে যারা ইউ.পি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন তাদের সবাইকে গঠনতন্ত্রের ৪৭/১১ ধারা মোতাবেক দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের সব ধরনের পদ থেকে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া দলীয় পদে থেকে যারা নৌকার বিরুদ্ধে অন্য প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন, তাদের সর্তক করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.